Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

মুন্সীগঞ্জে মেঘনা নদীতে ভেসে ওঠা দু'টি লাশ উদ্ধার করেছেন ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিরা। রোববার সকাল ৯টার দিকে গজারিয়া লঞ্চঘাট থেকে একটি এবং বেলা ১২টার দিকে গজারিয়া উপজেলার অদূরে চাঁদপুরের ষাটনল এলাকায় মেঘনা নদীতে ভাসতে থাকা আরেকটি লাশ উদ্ধার করা হয়।


হবে নিহত দু’জন এছাড়া গত সোমবার রাতে মেঘনা নদীতে ডুবে যাওয়া ট্রলারের শ্রমিক কিনা সে বিষয়ে নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরি ইউনিটের উপ-সহাকরী পরিচালক মো. মোস্তফা মহসিন দু’টি লাশ উদ্ধারের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি জানান, মেঘনায় ভেসে উঠলে ফায়ার সার্ভিসের ডুবুরিদল মরদেহ দু’টি উদ্ধার করে। উদ্ধার করা মরদেহ দু’টির পরিচয় জানা যায়নি। দু’টি মরদেহই ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ শ্রমিকদের কিনা তাও নিশ্চিত হওয়া যায়নি।

গজারিয়া লঞ্চঘাট থেকে উদ্ধার মরদেহ সম্পর্কে গজারিয়া থানার ওসি মো. হারুন অর রশীদ জানান, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের সদস্যরা সকালে লাশটি গজারিয়া লঞ্চঘাট এলাকা থেকে উদ্ধার করেন। লাশটি দেখে ট্রলারডুবিতে নিখোঁজ কোনো শ্রমিকের লাশ বলেই প্রাথমিকভাবে ধারণা মনে হয়েছে। তবে পরিচয় এখন শনাক্ত করা সম্ভব হয়নি। ট্রলারডুবির ঘটনায় নিখোঁজ শ্রমিকদের স্বজনদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা এলে হয়তো লাশের পরিচয় শনাক্ত করা সম্ভব হবে।

মুন্সীগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর-গজারিয়া) আশফাকুজ্জামান জানান, ট্রলারডুবির ঘটনায় উদ্ধার অভিযান অব্যাহত রয়েছে। চাঁদপুরের ষাটনলের কাছে মেঘনায় নৌবাহিনী, বিআইডাব্লিউটিএ, পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা অত্যাধুনিক প্রযুক্তি ব্যাবহার করে ট্রলারটির সন্ধান করছে।

প্রসঙ্গত, গত সোমবার রাতে মুন্সীগঞ্জ সদরের চরঝাপটা এলাকায় মেঘনা নদীতে মাটিবোঝাই ট্রলারকে বিপরীত দিক থেকে আসা একটি তেলবাহী ট্যাংকার ধাক্কা দিলে ট্রলারটি মেঘনায় ডুবে যায়। ট্রলারে থাকা ৩৪ জন শ্রমিকের মধ্যে ১৪ জন সাতঁরে তীরে উঠতে পারলেও ২০ জন নিখোঁজ রয়েছে।

bottom