Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

বিজ্ঞানের অগ্রযাত্রায় প্রতিদিনই নতুন কিছু না কিছু উদ্ভাবিত হচ্ছে। এরই ধারায় বিজ্ঞানীরা উদ্ভাবন করেছেন উন্নত প্রযুক্তির কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা, যা রোগীর মুখ দেখেই বিরল কিছু জিনগত ত্রুটি শনাক্ত করতে সক্ষম। নতুন এক গবেষণা নিবন্ধে এমনটাই দাবি করা হয়েছে। প্রযুক্তিটির নাম ডিপজেসটল্ট।


যুক্তরাজ্যের চিকিৎসাশাস্ত্র–বিষয়ক সাময়িকী নেচার মেডিসিন গত সোমবার গবেষণা নিবন্ধটি প্রকাশ করে। এতে বলা হয়, নতুন প্রযুক্তির কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ডিপজেসটল্ট পরীক্ষা পর্যায়ে দারুণ ফলাফল দেখিয়েছে। কিছু কিছু রোগের ক্ষেত্রে এটি প্রায় শতভাগ সাফল্য দেখাতে পেরেছে।
নিবন্ধে বলা হয়, বিশ্বের মোট জনগোষ্ঠীর প্রায় ৮ শতাংশ জিনগত ত্রুটিজনিত রোগে ভুগছে। এসব রোগের অনেকগুলোর ক্ষেত্রেই চেহারায় লক্ষণ স্পষ্ট থাকে। উদাহরণ হিসেবে অ্যাঙ্গেলম্যান সিনড্রোমের কথা বলা যায়। এই রোগে রোগীর স্নায়ুতন্ত্র আক্রান্ত হয়, যার লক্ষণ চেহারায় ফুটে ওঠে। এ ক্ষেত্রে মুখমণ্ডল বেশ প্রশস্ত হয়, দাঁতের মধ্যে ফাঁক স্পষ্ট থাকে এবং দুই চোখের মণির অবস্থান ভিন্ন কোণে থাকে।

যুক্তরাষ্ট্রের বোস্টনভিত্তিক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তা ও চিকিৎসা সরঞ্জাম প্রস্তুতকারী প্রতিষ্ঠান এফডিএনএর প্রধান প্রযুক্তি কর্মকর্তা ইয়ারন গুরোভিচ গবেষণায় নেতৃত্ব দিয়েছেন। তিনি বলেন, তাঁদের গবেষণার এই অগ্রগতি ভবিষ্যৎ গবেষণা ও তার থেকে প্রাপ্ত ফলাফল প্রয়োগ এবং জিনগত নতুন রোগ শনাক্তের ক্ষেত্রে নতুন দিগন্ত খুলে দিয়েছে। তিনি জানান, তিনি ও তাঁর দল একটি ডেটাবেইস থেকে ১৭ হাজার রোগীর চেহারার ছবি সংগ্রহ করে ডিপজেসটল্টকে প্রশিক্ষণ দিয়েছেন। এরপর পরীক্ষায় দেখা গেছে, ডিপজেসটল্ট ৯১ শতাংশ ক্ষেত্রে সঠিকভাবে রোগ নির্ণয় করতে পারছে।

bottom