Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে বক্তব্য দেন তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, ‘তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তিতে পুরো বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে বাংলাদেশও এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা এখন আর ঘোড়ার গাড়িতে চড়ি না, অটো গাড়িতে চড়ি। বাংলাদেশ এখন আর দরিদ্র রাষ্ট্রের কাতারে নেই। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ নিম্ন আয়ের দেশ থেকে উন্নয়নশীল রাষ্ট্রে পরিণত হয়েছে।’ আজ সোমবার রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সিনেট ভবনে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক রাজশাহী শীর্ষক প্রকল্পের আওতায় দুটি ল্যাব উদ্বোধন শেষে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।


অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী বলেন, আজকে ডিজিটাল বাংলাদেশে একটি নতুন দিগন্তের উন্মোচন হলো। আমাদের দায়িত্ব ছিল প্ল্যাটফর্ম তৈরি করে দেওয়া, এমন ল্যাব তৈরি করে দেওয়া সেটা আমরা করে দিয়েছি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এ দেশের তরুণ ছাত্র জনতার ওপর বিশ্ব জয়ের এ দায়িত্ব অর্পণ করেছেন।

শিক্ষার্থীদের উদ্দেশে প্রতিমন্ত্রী বলেন, অকমেনটরি রিয়ালিটি, ভার্চুয়াল রিয়ালিটি ও মিক্স রিয়ালিটি বর্তমান বিশ্বে সবচেয়ে সম্ভাবনাময় প্রযুক্তি। এমন প্রযুক্তি সব জায়গায় পরিবর্তন আনবে। পুরো বিশ্ব এখন এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশ যেন কোনোভাবে পিছিয়ে থাকতে না পারে বিশ্বের দরবারে নেতৃত্ব দিতে পারে সেজন্য রাবিতে অকমেনটরি রিয়ালিটি, ভার্চুয়াল রিয়ালিটি ও মিক্স রিয়ালিটির সম্পূর্ণ ল্যাব তৈরি করে দেওয়া হলো। আমাদের তরুণ প্রজন্ম এই ল্যাবটি ব্যবহার করে নিজেরা যেমন নিজেদের পায়ে দাঁড়াবে তেমনি পাশাপাশি বাংলাদেশের যে প্রযুক্তিনির্ভর অর্থনীতি শেখ হাসিনার নেতৃত্বে দ্রুতগতিতে এগিয়ে  যাচ্ছে সেখানেও আমরা সফল হব।

পলক বলেন, তোমরা সঠিক তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার করা জানবে। তোমাদের জন্য নতুন প্ল্যাটফর্ম তৈরি করতেই সারা দেশে ২৮টি হাইটেক পার্ক নির্মাণ করা হবে। এক একটি হাইটেক পার্কে তোমাদের মতো শিক্ষার্থীরাই কাজ করবে। রাজশাহীর মাটিতে প্রায় ২৫০ কোটি টাকা ব্যয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা আমাদের শেখ মুজিব হাইটেক পার্ক উপহার দিয়েছেন। সেখানে প্রায় ১৪ হাজার তরুণ-তরুণীর কর্মসংস্থান হবে। সেই তরুণ তরুণ আমাদের দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আমরা আশা করছি বিশ্ববিদ্যালয়ের অত্যাধুনিক এই ল্যাবের মাধ্যমে একদিকে যেমন শেখ মুজিব হাইটেক পার্কে আমাদের ভবিষৎ প্রজন্মের সন্তানদের কর্মসংস্থানের জন্য তাদের সুযোগ করে তুলবে পাশাপাশি বিশ্বে আমরা প্রযুক্তিনির্ভর বাংলাদেশে ডিজিটাল অর্থনীতি গড়ে তুলতে এ ল্যাব ভূমিকা পালন করবে। প্রযুক্তিগত শিক্ষা আগামী দিনে অপরিসীম সম্ভাবনা বয়ে আনবে।

অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহানের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, উপ-উপাচার্য অধ্যাপক আনন্দ কুমার সাহা ও বঙ্গবন্ধু হাইটেক পার্কের প্রকল্প পরিচালক এ কে এম ফজলুল হক। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক রফিকুল ইসলাম সেখ, বরেন্দ্র বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ওসমান গনি তালুকদার প্রমুখ।

bottom