Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

সাধারণত হৃদসংবহন তন্ত্র, মস্তিষ্ক, বৃক্ক ও প্রান্তিক ধমনী সম্পর্কিত রোগকে হৃদরোগ বলা হয়। হৃদরোগের অনেক কারণ থাকতে পারে, তবে উচ্চ রক্তচাপ ও অ্যাথেরোসক্লোরোসিস প্রধান। পাশাপাশি বয়সের সাথে সাথে হৃদপিণ্ডের গঠনগত ও শারীরবৃত্তিক পরিবর্তন হৃদরোগের জন্য অনেকাংশে দায়ী।


Hostens.com - A home for your website

সারা বিশ্বে প্রতি বছর বহু মানুষের মৃত্যু হয় এই রোগে। সম্প্রতি যুক্তরাষ্ট্রের এক গবেষণায় বলা হয়েছে, তুলনামূলকভাবে কম বয়সী নারীদের মধ্যে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকি আগের চেয়ে অনেক বেড়েছে। এই গবেষণার জন্য গবেষক দল যুক্তরাষ্ট্রের যে সব হাসপাতালে হৃদরোগের চিকিৎসা হয় সেখান থেকে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়া ৩৫ থেকে ৫৪ বছর বয়সী নারীদের তথ্য সংগ্রহ করেন। ১৯৯৫-৯৯ সাল পর্যন্ত সময়ে সেখানে হাসপাতালে ভর্তি হওয়া হৃদরোগীদের মধ্যে ৩৫ থেকে ৫৪ বছর বয়সী নারীদের হার ছিল ২৭%।

অন্যদিকে ২০১০-২০১৪ সাল পর্যন্ত সময়ে এই হার ছিল ৩২%। সম্প্রতি সারকুলেশন জার্নালে এই তথ্য প্রকাশিত হয়। ঐ সময়ে পুরুষদের হৃদরোগে আক্রান্তের হার ৩০% থেকে বেড়ে ৩৩% হলেও নারীদের ক্ষেত্রে তা ২১% থেকে বেড়ে ৩১% হয়েছিল।

গবেষণা দলের জ্যেষ্ঠ অধ্যাপক মেলিসা কগে বলেন, বয়স্কদের তুলনায় তরুণদের ক্ষেত্রে হৃদরোগে আক্রান্ত হওয়ার হার বেশি ছিল। তবে এক্ষেত্রে পুরুষদের তুলনায় নারীদের সংখ্যাই বেশি ছিল। যুক্তরাষ্ট্রের সেন্টার ফর ডিজেস কন্ট্রোল এন্ড প্রিভেনশনের তথ্য অনুযায়ী দেশটিতে প্রতি বছর গড়ে সাত লাখ ৯০ হাজার মানুষ হৃদরোগে আক্রান্ত হয়। দেশটিতে মৃত্যুর অন্যতম কারণও হৃদরোগ।

bottom