Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

তামাক প্রতিরোধে এর ক্ষতিকর দিকগুলো তুলে ধরে সে সম্পর্কে জনগণের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানোর ওপর গুরুত্বারোপ করেছেন প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের এসডিজি বিষয়ক মুখ্য সমন্বয়ক মো. আবুল কালাম আজাদ।


শনিবার বিকালে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় তিনি একথা বলেন।

রাজধানীর মিরপুরে ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের অডিটোরিয়ামে আয়োজিত এই মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জাতীয় অধ্যাপক অবসরপ্রাপ্ত বিগ্রেডিয়ার জেনারেল আব্দুল মালিক।

তামাক ও অসংক্রামক রোগ: এসডিজি অর্জনে অন্যতম অন্তরায় শীর্ষক এই মতবিনিময় সভায় চিকিৎসক, বিভিন্ন পেশার সাথে জড়িত ব্যক্তিবর্গ, গণমাধ্যমকর্মীরা অংশগ্রহণ করেন।

অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো. হাবিবুর রহমান খান, স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের লাইন ডাইরেক্টর ডা. নূর মোহাম্মদ।

প্রধান অতিথি আবুল কালাম আজাদ বলেন, “টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জনে সিভিল সোসাইটির সংযোগ যা আছে তার চেয়ে আরো বাড়াতে হবে। এ পর্যন্ত দেশ যা এগিয়েছে এতে প্রত্যেকের অবদান আছে।”

সিগারেটের ক্ষতির দিকগুলো তুলে ধরা হলেও জর্দার বিষয়টি এখনো অন্ধকারে আছে মন্তব্য করে তিনি বলেন, “জর্দা নিয়ে কাজ করার অনেক সুযোগ রয়েছে। জর্দার ক্ষতিকারক দিকগুলো তুলে ধরা ট্যাক্স বাড়ানোসহ বিভিন্ন কাজ রয়েছে। এগুলো নিয়ে আমরা কাজ করতে পারি।

“গাঁজার চাষ বন্ধ হয়েছে, কিন্তু গাঁজা সেবন কি বন্ধ হয়েছে? হয়নি। তারা অন্য মাদক নিচ্ছে। তামাক বন্ধ করলেই হবে না, এজন্য সবচেয়ে বড় প্রয়োজন সচেতনতা বাড়ানোর পাশাপাশি শিক্ষিত করে তোলা।”

নির্বাচনের সময় তামাক ব্যবহারের বিষয়টি নিয়ে নির্বাচন কমিশনের সাথে কথা বলার প্রতিশ্রুতি দেন আবুল কালাম আজাদ।

দেবী চলচ্চিত্রে আইন বর্হিভূতভাবে সিগারেট ব্যবহার করার বিষয়ে একজন বক্তার বক্তব্যের সূত্র ধরে আবুল কালাম আজাদ বলেন, সভা থেকেই বিষয়টি তথ্য সচিবকে অবহিত করা হয়েছে।

তিনি বলেন, “একসাথে কাজ করলে এক দিকে যেমন তামাক প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে, একই সাথে এসডিজি বাস্তবায়ন হবে।”

অনুষ্ঠানের শুরুতেই ন্যাশনাল হার্ট ফাউন্ডেশন অ্যান্ড রিসার্চ ইনস্টিটিউটের এপিডেমিওলজি অ্যান্ড রিসার্চ বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক সোহেল রেজা চৌধুরী মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। অনুষ্ঠান উপস্থাপনা করেন ডা. স্মিতা কানুনগো।

bottom