Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে বরকত পরিবহন নামের যাত্রীবাহী বাস উল্টে ৫ জন নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন আরও অন্তত ১৫ যাত্রী। শনিবার (৬ এপ্রিল) রাত পৌনে ৩টার দিকে রংপুর-ঢাকা মহাসড়কের গোবিন্দগঞ্জের কোমরপুর (কালিতলা) এলাকায় এই দুর্ঘটনা ঘটে।পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা জানায়, ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা বরকত পরিবহনের যাত্রীবাহী ওই বাসটি বুড়িমারী যাচ্ছিলো। কালিতলা এলাকায় পৌঁছানোর পর হঠাৎ করেই চালক বাসের নিয়ন্ত্রণ হারান। এতে বাসটি উল্টে সড়কের পাশের ধানের জমিতে গিয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলেই বাসে থাকা ৫ জন যাত্রী নিহত হওয়ার পাশাপাশি অন্তত ১৫ জন আহত হয়েছেন।


Hostens.com - A home for your website

নিহতদের মধ্যে চারজনের পরিচয়া জানিয়েছেন হাইওয়ে থানার অফিসার ইনচার্জ আখতারুজ্জামান। তারা হলেন- রংপুরের মিঠাপুকুর উপজেলার রিয়াজ উদ্দিন, লালমনিরহাটের পাটগ্রাম উপজেলার মাহাবুল ইসলাম, টাঙ্গাইলের সুনীল কুমার ও বাসের হেলপার লালমনিরহাটের হাতীবান্ধা থানার দোয়ানী গ্রামের বিদ্যুৎ।

গোবিন্দগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) একেএম মেহেদী হাসান দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, খবর পেয়েই ঘটনাস্থলে গিয়ে উদ্ধার তৎপরতা চালানো হয়। বাস থেকে ৫ জনের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। বাসের ভিতরে আরও লাশ থাকতে পারে। কিন্তু বাসটি উল্টে যাওয়ায় ঠিক বোঝা যাচ্ছে না। বাসটি উল্টে যাওয়ায় উদ্ধার কাজে সময় লাগছে।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে তাৎক্ষণিকভাবে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিস কর্মীরা উদ্ধার তৎপরতা চালায়। উল্টে যাওয়া বাসে চাপা পড়ে থাকা ৫ জনের লাশ উদ্ধার করে ফায়ার সার্ভিসকর্মীরা। এছাড়া আহতদের উদ্ধার করে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সসহ বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত (রাত সাড়ে ৪টা) উদ্ধার তৎপরতা চলমান ছিল।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বেপরোয়া গতির কারনেই চালক নিয়ন্ত্রণ হারায় এবং বাসটি উল্টে রাস্তার পাশের খাদে পড়ে যায়।

আহত যাত্রীরা জানান, বাসটি বেপরোয়া চালানোর কারণে এ দুর্ঘটনা ঘটেছে।

জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে গোবিন্দগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার রামকৃষ্ণ বর্মন আহতদের চিকিৎসার খোঁজ-খবর নেন।

তিনি জানান, দুঘর্টনার কারণ অনুসন্ধানে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হবে। নিহতদের পরিবারকে ১০ হাজার টাকা করে আর্থিক সহায়তা দেয়া হয়েছে।

 

bottom