Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

রাজস্ব বাড়াতে কর অব্যাহতির সংস্কৃতি থেকে বাংলাদেশের বেরিয়ে আসতে হবে বলে মনে করেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত। তিনি বলেন, “এনবিআর ট্যাক্স এক্সজামশনের (কর অব্যাহতি ) একটি জংগলে পরিণত হয়েছে।আমি সেটাকে কিছুটা কমিয়ে নিয়ে এসেছি।এটিতে আরো দৃষ্টি আকর্ষন করা উচিত। অব্যাহতির সংস্কৃতি থেকে বেরিয়ে আসতে হবে।”


মঙ্গলবার সাংবাদিক আবু কাওসারের লেখা রাজস্ব ভাবনা: যেতে হবে বহুদূর শীর্ষক বইয়ের মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ কথা বলেন মুহিত।

অর্থমন্ত্রী বলেন, রাজস্ব আয় বাড়ানোর জন্য নীতি ও সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন, কর অব্যাহতি কমানো এবং পণ্যের ট্যারিফ মূল্য প্রথা বন্ধ অথবা সীমিত করা দরকার।

পাশাপাশি শিক্ষার্থীদের দিয়ে প্রতিবছর দেশের নির্দিষ্ট এলাকায় জরিপ করে নতুন করদাতা চিহ্নিত করারও প্রস্তাব করেছেন তিনি।

মুহিত বলেন, দেশের অনেক আইন-কানুন ভালো। কিন্তু সেগুলো ব্যর্থ হয় বাস্তবায়ন সক্ষমতার অভাবে। এজন্য শুধু সংস্কার বা পুনর্গঠন করলেই রাজস্ব আয় বাড়বে, তা নয়। সংস্কার ছাড়াও নীতি, সিদ্ধান্ত ঠিকভাবে বাস্তবায়ন করা গেলে রাজস্ব আয় বাড়ানো সম্ভব। এজন্য সরকারের বাস্তবায়নে যে দুর্বলতা তা দূর করতে হবে।

“ পণ্যের ট্যারিফ মূল্য থাকা উচিত নয়। এটা বাদ দিতে হবে অথবা সীমিত করতে হবে।”
প্রকাশিত বই সম্পর্কে অর্থমন্ত্রী বলেন, যতদূর জানা গেছে, রাজস্ব নিয়ে এ রকম বই বাংলা ভাষায় আর দ্বিতীয়টি নেই। বইটিতে পাঁচটি অধ্যায়ে রাজস্বের বিভিন্ন সূত্র নিয়ে ব্যাখ্যা ও হিসাব দেওয়া হয়েছে। শেষ অধ্যায়ে ১৩টি সাক্ষাৎকার রয়েছে। এসব সাক্ষাৎকার যারা দিয়েছেন তারা সবাই রাজস্ব বিষয়ে জ্ঞান রাখেন।
তিনি বলেন, আমি বইটা পুঙ্খানুপুঙ্খভাবে পড়ব। পরের সরকারে অর্থমন্ত্রীর জন্য যে পরামর্শ রেখে যাব, সেটি তৈরিতে এ বইটা সহযোগিতা করবে।

অনুষ্ঠানের প্রধানমন্ত্রীর অর্থনৈতিকবিষয়ক উপদেষ্টা মসিউর রহমান বলেন, শুধু কঠোর পদক্ষেপ নিলেই রাজস্ব আহরণ বাড়বে তা নয়। এমনভাবে কর নির্ধারণ করতে হবে, যাতে উৎপাদন ব্যবস্থাকে সহজ করে। অতিরিক্ত উৎপাদন থেকে কর দেওয়া যায়।

“ রাজস্বের বড় দুর্বলতা করহার। বর্তমানে একাধিক হারে কর আদায় হয়। এটাকে একক হারে নিয়ে আসতে হবে। একক হারে বিনিয়োগ পরিকল্পনা ও হিসাব সহজ।”

এফবিসিসিআইর সাবেক সভাপতি ও সমকাল প্রকাশক এ কে আজাদ বলেন, রাজনৈতিক সদিচ্ছা ছাড়া রাজস্ব আয় বাড়াবে না।এনবিআরে অনেক দক্ষ মানুষ আছে। কিন্তু তারা পুরোপুরিভাবে তাদের দক্ষতা ব্যবহার করতে পারেন না।

দুদকের সাবেক চেয়ারম্যান গোলাম রহমান বলেন, কর ব্যবস্থার সংস্কার দরকার। দেশে ধনী-দরিদ্রের বৈষম্য বাড়ছে। ধনীরা দ্রুত ধনী হচ্ছেন। তিনি অতিধনীদের কাছ থেকে বেশি কর আদায়ের প্রস্তাব করেন।

আবু কাওসার সমকালের বিশেষ প্রতিনিধি। মেলা প্রকাশন থেকে প্রকাশিত হয়েছে বইটি।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে এনবিআর সদস্য জিয়া উদ্দিন মাহমুদ, সাবেক চেয়ারম্যান আব্দুল মুয়ীদ চৌধূরী, মোহাম্মদ আবদুল মজিদ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন।

bottom