Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজে মাশরাফি বিন মুর্তজাকে পাওয়া যাবে কিনা, সেই সিদ্ধান্ত জানা যাবে সময়ে। তবে বিসিবি সভাপতি নাজমুল হাসানের বিশ্বাস, একদিনের জন্য ফুরসত পেলেও এই সিরিজে খেলবেন বাংলাদেশের ওয়ানডে অধিনায়ক।


মাশরাফির খেলা, না খেলা নিয়ে প্রশ্ন আসছে তার নির্বাচনে অংশ নেওয়ার সম্ভাবনায়। জাতীয় নির্বাচনে প্রার্থী হতে নড়াইল-২ আসন থেকে আওয়ামী লীগের মনোনয়নপত্র তুলেছেন ওয়ানডে অধিনায়ক। বাংলাদেশ-ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজের তিন ওয়ানডে আগামী ৯, ১১ ও ১৪ ডিসেম্বর। জাতীয় নির্বাচন ৩০ ডিসেম্বর। দলের প্রার্থী হিসেবে চূড়ান্ত মনোনয়ন পেলে মাশরাফির নির্বাচনী প্রচারের সময় চলবে সিরিজ।

বৃহস্পতিবার জিম্বাবুয়ের বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ শেষে মিরপুর শের-ই-বাংলা স্টেডিয়ামে সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছিলেন নাজমুল হাসান। সেখানে উঠল মাশরাফিকে পাওয়া, না পাওয়ার প্রসঙ্গ। বোর্ড প্রধান জানালেন, খেলাই সবার ওপরে প্রাধান্য পাবে মাশরাফির কাছে।

“এটা তো কঠিন প্রশ্ন (ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজে মাশরাফিকে পাওয়া যাবে কিনা)। কিন্তু বিশ্বকাপে পাওয়া যাবে, আমি যতটুকু জানি। ওর নির্বাচনের ইস্যু যেটা হচ্ছে, টাইমিং যদি দেখেন, ওর নমিনেশন পেপার সাবমিট করার তারিখ আছে, কবে ফরম পূরণ করবে, ওর ওখানে কি প্রোগ্রাম করবে, আমি কিছু জানি না। আজকে ওর সঙ্গে আমার দেখা হবে মনে হয়। সম্ভাবনা আছে দেখা হওয়ার। যদি সুযোগ থাকে, অবশ্যই খেলবে। এটা আমার ধারণা। যদি একদিনের জন্যও সুযোগ থাকে, অবশ্যই খেলবে। খেলাটা ওর কাছে সবচেয়ে বেশি প্রাধান্য পাবে।”

ক্রিকেট ছাড়ার আগেই মাশরাফির রাজনীতিতে আসা নিয়ে প্রশ্ন আছে অনেকের। কিন্তু কোনো সমস্যা দেখছেন না বোর্ড সভাপতি।

“এটা আমি মনে করি না (কোনো সমস্যা)। সাকিবও করতে চেয়েছিল। কিন্তু সে আরও চার-পাঁচ বছর খেলবে বলে আমরা মনে করি। এসব চিন্তা করে সাকিবকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী বলেছেন, এখন তুমি খেলো। কিন্তু মাশরাফির ব্যাপারটা একটু ভিন্ন। ও কতদিন খেলবে আমরা এখনও নিশ্চিত নই। যে শারীরিক অবস্থায় খেলছে, এটাই তো অনেক। এখনও যে আমাদের দিচ্ছে, ও কিন্তু খেলোয়াড় হিসেবে খেলে না, অধিনায়ক হিসেবে মূলত আমাদের দলে রয়েছে। অধিনায়কত্বটাই বেশি গুরুত্বপূর্ণ। কারণ ওর মতো অধিনায়ক আমরা আর পাচ্ছি না, পাব বলে মনে হয় না।”

“সেদিক থেকে চিন্তা করলে সে হয়তো বড়জোর বিশ্বকাপ...বিশ্বকাপের পরে অবসর নিতে চাইবে। এটাই যদি হয়, তাহলে তো কয়েকটা মাসের ব্যাপার। যদি তাই হয়, এর চেয়ে ভালো প্রস্থান পরিকল্পনা আর হতে পারে না যে এখান থেকে গিয়ে রাজনীতিতে যাবে। ৬ মাস পর অবসর নিলে সে কি করবে পরের সাড়ে চার বছর? এখন অন্তত আরেকটা লাইনে থাকল। এটা দিয়ে বরং সে ক্রীড়াক্ষেত্রে আরও জোড়ালোভাবে অবদান রাখতে পারবে, এটাই আমার বিশ্বাস।”

bottom