Foto

Please Share If You Like This News


Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

ফেনী-চট্টগ্রামের সীমানায় ৩০ হাজার একর জমি নিয়ে গড়ে উঠা দেশের সর্ববৃহৎ অর্থনৈতিক বলয়টি নাম পেতে যাচ্ছে ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর’। আর এই শিল্পাঞ্চলে ১০০ একর আয়তনের দুটো জলাধার হচ্ছে, তার নাম ‘শেখ হাসিনা সরোবর’ দেওয়ারও সিদ্ধান্ত নিয়েছে বাংলাদেশ অর্থনৈতিক অঞ্চল কর্তৃপক্ষ-বেজা। শিল্পাঞ্চলটির নামকরণের পথে কয়েক ধাপ অগ্রগতির পর এখন আনুষ্ঠানিক ঘোষণার অপেক্ষায় রয়েছে বেজা। বৃহস্পতিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বেজা জানায়, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সম্মানে চট্টগ্রাম ও ফেনী জেলার সীমানাজুড়ে গড়ে উঠা তিনটি অর্থনৈতিক অঞ্চলকে একত্রিত করে এর নাম ‘বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর’ করেছে বেজা।


Hostens.com - A home for your website

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ২৮ মার্চ জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান মেমোরিয়াল ট্রাস্টে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছিল। গত ১০ অগাস্ট ট্রাস্ট নাম ব্যবহারের প্রস্তাবে সম্মতি দেয়।

বেজার প্রথম বোর্ড সভায় মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল এবং চতুর্থ বোর্ড সভায় ফেনী অর্থনৈতিক অঞ্চল হিসেবে দুটি অর্থনৈতিক অঞ্চল অনুমোদন পেয়েছিল। ষষ্ঠ বোর্ড সভায় সীতাকুণ্ড নামে আরেকটি অর্থনৈতিক অঞ্চল অনুমোদন পায়।

এতিনটি অর্থনৈতিক অঞ্চল চট্টগ্রাম জেলার সীতাকুণ্ড ও মিরসরাই উপজেলা এবং ফেনী জেলার সোনাগাজী উপজেলা নিয়ে প্রায় ৩০ হাজার একর জমির উপর প্রতিষ্ঠিত।

বেজার নির্বাহী চেয়ারম্যান পবন চৌধুরী বিডিনিউজ টোয়েন্টিফোর ডটকমকে বলেন, এই অর্থনৈতিক বলয়টি বঙ্গবন্ধুর নামে করার প্রস্তাব তারা দিয়েছিলেন। বঙ্গবন্ধু মেমোরিয়াল ট্রাস্টের অনুমোদন পাওয়ার পর এখন বাকি প্রক্রিয়া শেষ করে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া হবে।
২০১৪ সালের নভেম্বরে মিরসরাই অর্থনৈতিক অঞ্চল উন্নয়নে কাজ শুরু করে বেজা। মিরসরাইয়ের এ অঞ্চলটিতে নিচু এলাকা হওয়ায় বর্ষাকালে প্রায় ৪-৫ ফুট পানির নিচে থাকত। অতিরিক্ত লবণাক্ততার কারণে শুকনো মৌসুমেও সেখানে ফসল হতো না।

সমুদ্রের জলোচ্ছ্বাস থেকে রক্ষার জন্য সেখানে নির্মাণ করা হয় প্রতিরক্ষা বাঁধ। যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নয়নে নির্মাণ করা হয়েছে ১০ কিলোমিটার সংযোগ সড়ক।

অর্থনৈতিক অঞ্চলটিতে ভূমি উন্নয়নের কাজ আন্তর্জাতিক দরপত্রের মাধ্যমে সরকারি-বেসরকারি অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে বাংলাদেশের যৌথ কোম্পানি পাওয়ারপ্যাক-গ্যাসমিন-ইস্টওয়েস্ট জেভিকে দেওয়া হয়।

এ শিল্প নগরে ইতোমধ্যে প্রায় ১১৫০ একর জমির উপর বেপজা অর্থনৈতিক অঞ্চল প্রতিষ্ঠায় বেপজাকে জমি বরাদ্দ দেওয়া হয়েছে।

এছাড়া বিজিএমইএকে একটি পরিকল্পিত গার্মেন্টস পার্ক নির্মাণ ৫০০ একর জমি বরাদ্দ দেওয়ার সমঝোতা স্মারকেও সই করেছে বেজা।

বিদেশি বিনিয়োগকারীদের মধ্যে জাপানের নিপ্পন স্টিল ও সুজিত করপোরেশন, ভারতের এশিয়ান পেইন্টস, যুক্তরাজ্যের বার্জার পেইন্টস, চায়নার জিনদুন গ্রুপসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সঙ্গেও কারখানা স্থাপনে চুক্তি কিংবা সমঝোতা স্মারক সই হয়েছে বলে বেজা জানায়।

এছাড়া দেশি-বিদেশি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান থেকে প্রায় ১৭৫০ কোটি ডলার সমমূল্যের বিনিয়োগ প্রস্তাব পাওয়া গেছে বলেও জানানো হয়েছে।

Report by - https://bangla.bdnews24.com

Facebook Comments

bottom