Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে আসামে আটক ৭ রোহিঙ্গাকে মিয়ানমারে ফেরত পাঠিয়েছে ভারত। তবে এ রোহিঙ্গারা সেখানে নিরাপদ নয় বলে উদ্বেগ প্রকাশ করেছে জাতিসংঘ। ভারতের সুপ্রিম কোর্ট বৃহস্পতিবার ৭ জনকে ফেরত পাঠানোর সরকারি সিদ্ধান্ত স্থগিত চেয়ে করা একটি আবেদন খারিজ করে। এর কয়েক ঘণ্টা পরই আসাম পুলিশ মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছে রোহিঙ্গাদের হস্তান্তর করেছে বলে জানিয়েছে ‘দ্য টাইমস অব ইন্ডিয়া’।


রাখাইন থেকে পালিয়ে আসা রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফেরত পাঠানোর ক্ষেত্রে এটিই ভারত সরকারের প্রথম পদক্ষেপ। জাতিসংঘের শরণার্থী বিষয়ক সংস্থা মিয়ানমারে ৭ রোহিঙ্গা নিরাপদ নয় বলে বার্তা দিলেও এর কোনো তোয়াক্কা করেনি ভারত।

জাতিসংঘ ভারতের পদক্ষেপের কড়া সমালোচনা করেছে। রোহিঙ্গাদের ঝুঁকির মুখে ঠেলে দিয়ে ভারত আন্তর্জাতিক আইন ভঙ্গ করছে বলে অভিযোগ করেছেন জাতিসংঘের বর্ণবাদ বিষয়ক এক বিশেষ কর্মকর্তা।

২০১২ সালে ওই রোহিঙ্গারা অবৈধ অনুপ্রবেশের অভিযোগে আটক হয়। তখন থেকেই তারা আসামের শিলচরের একটি কারাগারে বন্দি ছিল। পরে তাদেরকে দেশে পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। এ সিদ্ধান্ত স্থগিত চেয়ে আদালতে আবেদন করেছিলেন এক রোহিঙ্গা।

সে আবেদনই প্রত্যাখ্যান করে সুপ্রিম কোর্টের তিন বিচারপতির বেঞ্চ বলেছে, “আদালতে তারা অবৈধ অভিবাসী বলে প্রতীয়মান হয়েছে এবং মিয়ানমার তাদেরকে নাগরিক হিসেবে গ্রহণ করেছে। তাই যে সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে আমরা তাতে হস্তক্ষেপ করতে চাই না। সিদ্ধান্ত স্থগিতের আবেদন খারিজ করা হল।”

বৃহস্পতিবার আসাম পুলিশের এডিশনাল ডাইরেক্টর জেনারেল ফোনে বলেন, “মিয়ানমারের ৭ নাগরিককে আজ ফেরত পাঠানো হয়েছে। মণিপুরের মোরেহ সীমান্ত ফাঁড়িতে তাদেরকে মিয়ানমার কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।”

ভারত সরকার আদালতকে জানিয়েছে যে, মিয়ানমার সরকার ৭ রোহিঙ্গাকে পরিচয়ের সার্টিফিকেট এবং ভ্রমণ ভিসাও দিয়েছে।

bottom