Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

দীর্ঘদিন খাঁচাবন্দি থাকার পর বন্যপ্রাণীগুলো অবশেষে ফিরে গেল নিজ আবাসস্থলে। পেল মুক্তির আনন্দ। মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে প্রাণীগুলোকে অবমুক্ত করা হয় মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে লাউয়াছড়া বনে। মঙ্গলবার শ্রীমঙ্গলে বাংলাদেশ বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের উদ্যোগে বনের আমতলী এলাকায় মোট ১১টি বন্যপ্রাণী অবমুক্ত করেন বিজিবি শ্রীমঙ্গল সেক্টরের সেক্টর কমান্ডার কর্নেল জোবায়ের হাসনাৎ।


অবমুক্ত করা প্রাণীর মধ্যে ছিল একটি গন্ধগোকুল, একটি বনবিড়াল, তিনটি অজগর, দুটি সরালি, দুটি বেগুনি কালিম পাখি, একটি মেছোবাঘ ও একটি তক্ষক।

এ সময় উপস্থিত ছিলেন ৪৬ বিজিবির অধিনায়ক লে. কর্নেল আরিফুল হক, শ্রীমঙ্গল সহকারী বন সংরক্ষক আনিছুর রহমান, বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সিতেশ রঞ্জন দেব, শ্রীমঙ্গল উপজেলা প্রেস ক্লাবের সহসভাপতি চৌধুরী ভাস্কর হোম, সাধারণ সম্পাদক বিকুল চক্রবর্তী, বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের পরিচালক সজল দেব, ভাড়াউড়া চা বাগানের সহকারী ব্যবস্থাপক গৌতম দেব, সাংবাদিক এসকে দাশ সুমন ও মিন্টু পাল। এ সময় লাউয়াছড়া বনে একটি বটবৃক্ষ রোপণ করেন অতিথিরা।

বন্যপ্রাণী সেবা ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সিতেশ রঞ্জন দেব জানান, গ্রামের ঝোপঝাড় কেটে ফেলায় এবং বনজঙ্গলে পানি ও খাদ্যের অভাবে বন্যপ্রাণীরা প্রায়ই লোকালয়ে ছুটে আসে। তখন মানুষের আক্রমণে অনেক সময় তারা আহত ও নিহত হয়। মানুষের হাতে বন্যপ্রাণী ধরা পড়ার খবর পেলেই তারা সেগুলোকে উদ্ধার করে আনেন এবং প্রয়োজনীয় সেবাযত্ন শেষে আবার অবমুক্ত করা হয়।

সজল দেব জানান, অবমুক্ত করা প্রাণীগুলোর মধ্যে মেছোবাঘটিকে মৌলভীবাজার সদর উপজেলার একটি হাঁসের খামার থেকে আহতাবস্থায় উদ্ধার করা হয়েছিল। অন্যদিকে বনবিড়ালটিকে শ্রীমঙ্গলের ভাড়াউড়া ও অজগর সাপটি উদ্ধার করা হয়েছিল রাজনগর থেকে। বাকিগুলোও বিভিন্ন লোকালয় থেকে উদ্ধার করা হয়।

bottom