Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

মোসাদ্দেকের আবাহনী ঢাকা প্রিমিয়ার লিগে ব্যাট করতে নেমে ২৫১ রানে থামে। ছয় বল বাকি থাকতে মাশরাফিরা অলআউট হয়ে যায়। দলের পক্ষে ওয়াসিম জাফর ৭১ এবং নাজমুল শান্ত ৭০ রান করেন। পরে মোহাম্মদ মিঠুন ৪১ এবং মাশরাফি ২৪ রান করলে আড়াইশ' ছাড়ানো সংগ্রহ পায় আবাহনী। শুরুর ১২ রানেই তারা হারায় তিন উইকেট। সেই ধাক্কা সামাল দেন ভারতীয় ওয়াসিম এবং বাংলাদেশ দলে খেলা শান্ত।


জবাবে ব্যাট করতে নেমে বাংলাদেশ পেস অলরাউন্ডার সাইফউদ্দিনের বোলিং তোপে গুড়িয়ে যায় প্রাইম দোলেশ্বর। ২৯.৪ ওভারে তারা মাত্র ৮৬ রানে অলআউট হয়ে যায়। সাইফউদ্দিন ৬ ওভার হাত ঘুরিয়ে নয় রান দিয়ে নেন ৫ উইকেট। আবাহনী ১৬৫ রানের বড় জয় তুলে নেয়।

দিনের অপর ম্যাচে বড় রান তুলে জয় পায় পয়েন্ট টেবিল উড়তে থাকা লিজেন্ড অব রূপগঞ্জ। তারা প্রথমে ব্যাট করে মোহামেডান স্পোটিং ক্লাবকে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ৩১৪ রানের লক্ষ্য দেয়। দলের হয়ে মুমিনুল খেলেন ৭৮ রানের ইনিংস। বড় দান মারেন দলের অধিনায়ক বাংলাদেশ দলের হয়ে খেলা "ছক্কা নাঈম" খ্যাত নাঈম ইসলাম। তিনি ১০৮ রানের হার না মানা ইনিংস খেলেন। শাহরিয়ার নাফিস পাঁচে নেমে ৬১ বলে ৬৮ রান করেন।

জবাবে মোহামেডান ২২ বল থাকতে ২৬৭ রানে থামে। লিটন সেট হয়ে ২৪ রান করে ফিরে যান। ইরফান শক্কুর করেন ৭৩ রান। পরে রাকিবুল হাসান খেলেন ৫৮ রানের ইনিংস। এছাড়া সোহাগ গাজী-রজত ভাটিয়ারা ছোট ছোট রান করে আউট হলে হারতে হয়ে মোহামেডানকে।

ওদিকে বলে-ব্যাটে ছন্দ ফিরে পেয়েছেন বাংলাদেশ স্পিন অলরাউন্ডার নাসির হোসেন। আগের ম্যাচে দারুণ নিয়ন্ত্রিত বল করে তিন উইকেট নেন তিনি। দলকে জিতিয়ে ম্যাচ সেরা হন শেখ জামাল অলরাউন্ডার। সোমবার তিনি প্রাইম ব্যাংকের বিপক্ষে দারুণ এক সেঞ্চুরি করে দলকে জেতান। প্রথমে ব্যাট করে প্রাইম ব্যাংক ২৩৬ রানে অলআউট হয়। জবাবে ইলিয়াস সানির ৬৭ এবং নাসিরের হার না মানা ১১২ রানের ইনিংসের সুবাদে ৬ উইকেটে জেতে শেখ জামাল।

 

bottom