Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

সদ্য ঘোষিত কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের পূর্ণাঙ্গ কমিটির ৩০১ সদস্যের মধ্যে প্রায় এক-তৃতীয়াংশ ‘বিতর্কিত’ বলে মন্তব্য করেছেন সংগঠনটির পদবঞ্চিতরা। বৃহস্পতিবার দুপুরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে কমিটিতে থাকা ৯৯ জনকে ‘বিতর্কিত’ উল্লেখ করে নামের তালিকা প্রকাশ করেন তারা।


সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ছাত্রলীগের সাবেক প্রচার সম্পাদক সাইফ বাবু। লিখিত বক্তব্যে তিনি বলেন, ছাত্রলীগের সভাপতি-সাধারণ সম্পাদক মাত্র ১৭ জনের কথা বলেছেন। কিন্তু এতে বয়স শেষ, মাদক ব্যবসায়ী, হত্যা মামলার আসামি, বিএনপি-জামায়াতের সমর্থক, বিবাহিত ও চাকরিজীবী রয়েছেন শতাধিক। তাদের খুঁজে বের করতে হবে। তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার পাশাপাশি অর্থবহুল, সুন্দর ও সুষ্ঠু কমিটি গঠন করতে হবে। বিতর্কিতরা টিউমারের মতো। পরে তারা ক্যান্সারে পরিণত হবে। তাদের কমিটি থেকে বাদ দিতে হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ইতিমধ্যে কমিটি পুনর্গঠনের নির্দেশ দিয়েছেন উল্লেখ করে সাইফ বাবু বলেন, এতে আমরা আনন্দিত হয়ে এখানে উপস্থিত হয়েছি। প্রধানমন্ত্রীর সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন করতে হবে। নির্দেশ অমান্য করলে শক্ত জবাব দেওয়া হয়।বঙ্গবন্ধুর আদর্শের একজন সৈনিক বেঁচে থাকতেও ছাত্রলীগের কেউ ক্ষতি করতে পারবে না।

এ সময় আন্দোলনরত পদবঞ্চিত নেতাদের নানাভাবে ভয়-ভীতি দেখানো হচ্ছে এবং প্রাণনাশের হুমকি দেওয়া হয়েছে বলে অভিযোগ করেন তিনি। এছাড়া মধুর ক্যান্টিনে নেত্রীদের ওপর হামলাকারীদের শাস্তির দাবি জানান সাইফ বাবু।

সংবাদ সম্মেলনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন হল শাখা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকসহ পদবঞ্চিতরা উপস্থিত ছিলেন। লিখিত বক্তব্যের পর পদবঞ্চিত অন্যান্য নেতারা বক্তব্য রাখেন। এতে তারা বলেন, গতকাল (বুধবার) ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক সংবাদ সম্মেলন করে বিতর্কিত ১৭ জনের কথা উল্লেখ করেছেন। তাতেই প্রমাণিত হয়, আমাদের দাবি যৌক্তিক। তবে তারা ১৭ জন বললেও এই কমিটিতে ৯৯ জনই বিতর্কিত।

এ সময় তারা পূর্ণাঙ্গ কমিটিতে পদ দেওয়ার আগে নেতাদের ডোপ টেস্ট করানোরও দাবি জানান। বক্তারা বলেন, ছাত্রলীগ কিংবা ছাত্রলীগের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান নয়; আমাদের অবস্থান বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে।

এদিকে মধুর ক্যান্টিনে মারামারির ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে ছাত্রলীগ। বুধবার মধ্যরাতে ধানমণ্ডিতে আওয়ামী লীগ সভানেত্রীর রাজনৈতিক কার্যালয়ে ছাত্রলীগ সভাপতি রেজওয়ানুল হক চৌধুরী শোভন ও সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানী এক জরুরি সংবাদ সম্মেলন করেন। এতে তারা ছাত্রলীগের কমিটিতে ১৭ জন বিতর্কিত পাওয়া গেছে বলে উল্লেখ করেন। সংবাদ সম্মেলনে বিতর্কিতদের বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত হলে ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তাদের অব্যাহতি দেওয়া হবে বলেও ঘোষণা দেওয়া হয়।

গত সোমবার ছাত্রলীগের ৩০১ সদস্যের পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা করা হয়। কমিটি ঘোষণার পরপরই ছাত্রলীগের একাংশ এই কমিটির বিরুদ্ধে বিক্ষোভ শুরু করে। তাদের অভিযোগ, যোগ্য ও ত্যাগীদের মূল্যায়ন না করে নিষ্ক্রিয়সহ বিতর্কিতদের পদ-পদবী দেওয়া হয়েছে। এ অভিযোগে তারা কমিটি পুর্নগঠনের দাবি জানিয়ে বিক্ষোভ মিছিল করেন। মিছিল শেষে ওইদিন সন্ধ্যায় মধুর ক্যান্টিনে সংবাদ সম্মেলন করতে গেলে মারধরের শিকার হন তারা। পরদিন মঙ্গলবার দুপুরে সংবাদ সম্মেলন করে কমিটি থেকে অযোগ্যদের বাদ দিয়ে যোগ্যদের মূল্যায়ন করতে ৪৮ ঘণ্টার আল্টিমেটাম দেন পদবঞ্চিতরা।

bottom