Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে অপছন্দের দল হওয়ার কথা নিউজিল্যান্ড। গত কয়েক বছরে বাংলাদেশ অন্তত ঘরের মাঠে ইংল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের বিপক্ষেও জয় পেয়েছে। কিন্তু এই নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে জয় তো দূরে থাক, ভালো পারফরম্যান্সও দেখাতে পারেনি।


দেশের মাটিতে নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ৩টি ড্র থাকলেও নিউজিল্যান্ড সফরে গিয়ে সব ম্যাচই হেরেছে বাংলাদেশ। সেই পরিসংখ্যানের বিপক্ষে গিয়ে জয়ের জন্য আগামীকাল থেকে আরও একবার লড়াইয়ে নামবে বাংলাদেশ। আগামীকাল বাংলাদেশ সময় ভোর ৪টা থেকে হ্যামিলটনে শুরু হবে বাংলাদেশ ও নিউজিল্যান্ডের প্রথম টেস্ট। এই সিরিজে ৩টি টেস্ট খেলবে দুই দল। বাকি দুটি টেস্ট অনুষ্ঠিত হবে ওয়েলিংটন ও ক্রাইস্টচার্চে।

বাংলাদেশ এ পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে ১৩টি টেস্ট খেলেছে। প্রথম ৪ টেস্টেই ইনিংস ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ। প্রথম ৬ টেস্টে ৫টি ইনিংস হার ও একটি ৯ উইকেটের হার ছিল। ২০০৮ সালে এসে ঢাকায় প্রথম নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে একটি টেস্ট ড্র করে বাংলাদেশ। এরপর ২০১৩ সালে দুটি টেস্টই ড্র করতে পেরেছিল স্বাগতিক বাংলাদেশ। আবার ২০১৭ সালে এই নিউজিল্যান্ড সফরে দুটি টেস্টই বড় ব্যবধানে হেরেছিল বাংলাদেশ।

এবার অন্তত ভালো কিছু প্রত্যাশা করছে সফরকারীরা। এক্ষেত্রে বড় সমস্যা হলো, প্রথম টেস্টে অন্তত পূর্ণ শক্তির দল নিয়ে মাঠে নামতে পারছে না বাংলাদেশ। ইনজুরির কারণে অধিনায়ক সাকিব আল হাসান আগেই প্রথম টেস্টের দল থেকে ছিটকে গেছেন। প্রথম টেস্টে এখনও অনিশ্চিত সাবেক অধিনায়ক ও দেশের অন্যতম সেরা ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। চোটে ভুগছেন সম্প্রতি ভালো ফর্মে থাকা মোহাম্মদ মিঠুনও।

চোটের পর বাংলাদেশের বড় সমস্যা হবে সুইং ও বাউন্স। হ্যামিলটনে বাতাস খুব বড় সংকট হবে না হয়তো। তারপরও নিউজিল্যান্ডের কন্ডিশনে বাড়তি বাউন্স এবং শুরুর দিকের সুইং বাংলাদেশের ব্যাটসম্যানদের জন্য এক অগ্নি পরীক্ষা হয়ে দাঁড়াবে। ফলে দল অনেকটাই চেয়ে থাকবে তামিম ইকবালরা কেমন সূচনা এনে দিতে পারেন, সে দিকে।

bottom