Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

ওভালে আর কয়েক ঘণ্টা পরই মাঠে নামবে বাংলাদেশ। বিশ্বকাপে টাইগারদের প্রথম খেলা। প্রতিপক্ষ দক্ষিণ আফ্রিকা। খেলা শুরু হবে বাংলাদেশ সময় বিকাল সাড়ে ৩টায়। ওয়ানডে ক্রিকেটে এ দুদল একে অপরের মুখোমুখি হয়েছে ২০ বার। ১৭টিতে জয় পেয়েছে দক্ষিণ আফ্রিকা, বাংলাদেশ ৩টিতে। বাংলাদেশের এ ৩ জয়ের ১টি এসেছে ২০০৭ বিশ্বকাপে। বাকি দুটি ২০১৫ সালের দ্বিপক্ষীয় সিরিজে।


কোন দলের কী অবস্থা

ইংল্যান্ডের জোফরা আর্চারের বল মাথায় লাগার পর চোট পেয়ে মাঠ ছেড়েছিলেন দক্ষিণ আফ্রিকার হাশিম আমলা। এখনও পর্যবেক্ষণে আছেন তিনি। ম্যাচের দিন সকালে জানা যাবে খেলবেন কিনা এ ওপেনার। আর বাংলাদেশের বিপক্ষে খেলার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে ডেল স্টেইনের। নামতে পারেন ভারতের বিপক্ষে। দক্ষিণ আফ্রিকা দলে অন্তর্ভুক্ত হতে পারেন ক্রিস মরিস ও ডেভিড মিলার।

তবে এ ম্যাচে বাংলাদেশ দলে খুব বেশি পরিবর্তন হচ্ছে না। চোটের কারণে বল করতে পারবেন না মাহমুদউল্লাহ। তাকে দলে রেখে একজন স্পিন বোলিং অপশন খুঁজছে টিম ম্যানেজমেন্ট। সাম্প্রতিক পারফরম্যান্স বলছে, মোসাদ্দেক হতে পারেন সেই অপশন।

মাশরাফি কি বলছেন?

ওভালে প্রথম ম্যাচে ইংল্যান্ড তোলে ৩১১ রান। দক্ষিণ আফ্রিকা সংগ্রহ করে ২০৭ রান। একই উইকেটে লড়বে বাংলাদেশ ও দক্ষিণ আফ্রিকা। উইকেটের সাহায্য কি পাবে টাইগাররা?

জবাবে বাংলাদেশ অধিনায়ক বলেন, ওভালে যে উইকেট ছিল, সে রকম থাকলে আমরা কিছুটা হেল্প পেতে পারি। তবে গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে- উইকেট যেমনই থাকুক আমরা যেন সেরাটা দিতে পারি।

দলের লোয়ার মিডলঅর্ডার ও স্পিন অপশন নিয়ে কী ভাবছেন মাশরাফি? উত্তরে তিনি বলেন, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ এখনই বল করতে পারছে না। সেখানে বাড়তি স্পিনার নেয়ার ভাবনা আছে। মূল কনসার্ন হচ্ছে- সাত নম্বর জায়গা নিয়ে। আমরা মাহমুদউল্লাহর ব্যাটিং সেক্রিফাইস করতে চাই না।

টপঅর্ডার এখন ফর্মে আছে, এটি কি অধিনায়কের জন্য স্বস্তির? ম্যাশের জবাব, সৌম্য বা তামিম যদি বড় রান করে সেটি স্বস্তির বিষয় হবে। এশিয়া কাপে ১৫-১৬ রানে আমাদের ৩ উইকেট পড়ে যেত। আমরা সেখানে ভালো করেছি। তামিম, সৌম্য, লিটন, মুশফিক, সাকিব, মোসাদ্দেক-সবার ব্যাটেই রান আসছে নিয়মিত।

এ ম্যাচে ডেল স্টেইনের থাকার সম্ভাবনা কম, এটি কি বাংলাদেশকে বাড়তি সুবিধা দেবে? নড়াইল এক্সপ্রেস বলেন, স্টেইন থাকা বা না থাকা ব্যাপার নয়। তার বিকল্প হিসেবে যিনি আছেন তিনিও নিশ্চয়ই খারাপ না। আমরা ১০০ ওভার ভালো খেলার চেষ্টা করে যাব।

উইকেটে স্পিন না থাকা কি দুশ্চিন্তার? টাইগার দলপতি বলেন, হ্যাঁ, এটি একটি ব্যাপার। তবে এখন ফ্ল্যাট উইকেটেও স্পিন ভালো ধরে। আসলে দিনে কে কয়টা উইকেট নিচ্ছে তা ব্যাপার না। প্রতিপক্ষকে চাপে রাখাটা গুরুত্বপূর্ণ।

ইমরান তাহির কী বলছেন?

এ বিশ্বকাপে এটি বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ। দক্ষিণ আফ্রিকার দ্বিতীয়। তবে ম্যাচটি স্মরণীয় হয়ে থাকবে লেগস্পিনার ইমরান তাহিরের ক্যারিয়ারে। তার শততম ওয়ানডে এটি।

ইমরান বলেন, এটিই হতে যাচ্ছে আমার জীবনের সবচেয়ে বড় ম্যাচ। আমি জানি, এ ম্যাচের জন্য কী ত্যাগ স্বীকার করেছি।

ইংল্যান্ডের উইকেটে স্পিন ধরছে না। এটা নিয়ে দুশ্চিন্তায় তাহিরও। তিনি বলেন, আপনারা জানেন, বাংলাদেশ যেখানে খেলেছে, সেখানে স্পিন সবাই ভালো খেলে। তবে আমি চাইব দুজন স্পিনার খেলুক, শামস তাবরিজিও। যেন সে আমাকে সঙ্গ দিতে পারে। এটা একটা চ্যালেঞ্জ, আমাদের জন্য আমরা প্রস্তুত।

bottom