Foto

Please Share If You Like This News

Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে চিকিৎসার জন্য আজ শনিবার বিকেল পৌনে চারটার দিকে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে আনা হয়েছে। ঢাকা মহানগর পুলিশের রমনা জোনের একটি পেট্রোল কারে করে তাঁকে বিএসএমএমইউতে আনা হয়। এখানে চিকিৎসাকালীন খালেদা জিয়া ভিআইপি কেবিনে থাকবেন। ঢাকা মহানগর পুলিশের যুগ্ম কমিশনার কৃষ্ণপদ রায় সাংবাদিকদের বলেন, বিএনপির চেয়ারপারসন কারাবন্দী খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করা হয়েছে। তাঁকে আজকে ফিরিয়ে নেওয়ার ব্যাপারে কোনো নির্দেশনা তাঁদের কাছে নেই। তিনি বলেন, খালেদা জিয়ার নিরাপত্তার জন্য সব ধরনের ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।


গত ৪ অক্টোবর বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে বিএসএমএমইউতে ভর্তি করতে ও চিকিৎসাসেবা শুরু করতে পাঁচ সদস্যের একটি বোর্ড গঠন করার নির্দেশ দিয়েছেন হাইকোর্ট। বিএসএমএমইউয়ের চিকিৎসক আবদুল জলিল চৌধুরী ও বদরুনেসা আহমেদ এ বোর্ডে থাকবেন।
আদালত এও বলেছেন, আবেদনকারী (খালেদা জিয়া) তাঁর পছন্দ অনুসারে ফিজিওথেরাপিস্ট, গাইকোনকলজিস্ট ও টেকনিশিয়ান নিতে পারবেন। তবে বোর্ডের অনুমোদন সাপেক্ষে তিনি বাইরে থেকেও বিশেষজ্ঞ চিকিৎসক আনতে পারবেন।

খালেদা জিয়াকে আজ বিএসএমএমইউতে আনা হবে কারা মহাপরিদর্শক এই তথ্য গণমাধ্যমের জানানোর পর থেকে হাসপাতালের আশপাশে বিএনপি ও এর অঙ্গ–সহযোগি সংগঠনের নেতা–কর্মীরা উপস্থিত হতে থাকে। যখন হাসপাতালে খালেদা জিয়াকে আনা হয় তখন নেতা–কর্মীদের সামনে পুলিশের বেগ পেতে হয়। তাদের সঙ্গে পুলিশের ধাক্কাধাক্কির ঘটনা ঘটে।
ইউনাইটেড বা বিশেষায়িত হাসপাতালে চিকিৎসাসেবা নিতে নির্দেশনা চেয়ে গত ৯ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়া রিট করেন। আবেদনে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষার জন্য একটি বিশেষ বোর্ড গঠন করার নির্দেশনাসহ তাঁর চিকিৎসাসেবা–সংক্রান্ত যাবতীয় নথি দাখিলের নির্দেশনা চাওয়া হয়। গত ১৫ সেপ্টেম্বর খালেদা জিয়ার চিকিৎসায় গঠিত পাঁচ সদস্যের মেডিকেল বোর্ড পুরান ঢাকায় নাজিমুদ্দিন রোডের পুরনো কেন্দ্রীয় কারাগারে গিয়ে খালেদা জিয়ার স্বাস্থ্য পরীক্ষা করে।

জিয়া অরফানেজ ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় গত ৮ ফেব্রুয়ারি খালেদা জিয়াকে পাঁচ বছর সশ্রম কারাদণ্ড ও অর্থদণ্ডাদেশ দেন ঢাকার বিশেষ জজ আদালত-৫। এরপর থেকে খালেদা জিয়া নাজিমুদ্দিন রোডের কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন। ওই মামলায় বিচারিক আদালতের রায়ের পাঁচ মাসের মাথায় ১২ জুলাই আপিলের ওপর শুনানি শুরু হয়।

bottom