Foto

Please Share If You Like This News


Buffer Digg Facebook Google LinkedIn Pinterest Print Reddit StumbleUpon Tumblr Twitter VK Yummly

ফ্লাইওভারগুলো ঢাকার জন্য অভিশাপ। কিছু মানুষের পকেট ভারি করতে যানজট নিয়ন্ত্রণ ও সড়কে শৃঙ্খলা আনার অজুহাত দেখিয়ে শহরে একটার পর একটা ফ্লাইওভার তৈরি হচ্ছে। নিরাপদ সড়ক চাই আন্দোলনের ২৫ বছর পূর্তিতে আজ শনিবার প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা আবুদুল্লাহ আবু সায়ীদ এসব কথা বলেন।


Hostens.com - A home for your website

জাতীয় প্রেসক্লাবে আয়োজিত ওই বৈঠকে আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ বলেন, ফ্লাইওভার একটা শহরের জন্য অভিশাপ। অনেক দেশ ফ্লাইওভার ভেঙে দিয়েছে। মাঝখান থেকে কিছু লোকের লাভ হয়ে যাচ্ছে। ফ্লাইওভার করলেই টাকা। ৩০০/৪০০ কোটি টাকা থেকে আরম্ভ হয়ে ২০০০ কোটি টাকা। তো এ থেকে একটা বালুকণা সমান টাকা পকেটে ঢুকলেও লাভ।

আবদুল্লাহ আবু সায়ীদ আরও বলেন, ফ্লাইওভার ঠিক যত বড়, নিচে ঠিক সেই পরিমাণ জায়গা অব্যবহৃত পড়ে থাকছে। তাহলে ওপরের রাস্তাটার দরকার কি? নিচের রাস্তা দিয়েও তো চলা যায়। ফ্লাইওভারের কারণে বড় রাস্তার সৌন্দর্য–বৈভব সব নষ্ট হয়ে গেছে বলে মনে করেন তিনি। ফ্লাইওভারের কাছের ব্যবসা–বাণিজ্য, সংস্কৃতি সবকিছুর ওপরই ক্ষতিকর প্রভাব পড়েছে। শুধু ফুটপাতগুলো ফাঁকা করতে পারলে ও রিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ করতে পারলে আর ফ্লাইওভারের প্রয়োজন হতো না।

ফ্লাইওভারে ওঠার অভিজ্ঞতা কেমন? সেই অভিজ্ঞতার বর্ণনা দিতে গিয়ে মেলায় যাওয়া এক যাদুকরের প্রসঙ্গ টানেন বিশ্ব সাহিত্য কেন্দ্রের প্রতিষ্ঠাতা। তিনি বলেন, “মেলার মধ্যে এক লোককে বলতে শুনেছিলাম, যাইতে হারে তো আইতে হারে না। কি ব্যাপার! কি ব্যাপার! সে সবার কাছ থেকে চার আনা করে নিয়েছে। যাদু দেখাবে। চাই বলে একটা জিনিস, তার ভেতর কই মাছ ঢোকে কিন্তু আসতে পারে না। আমাদের ফ্লাইওভারগুলো হয়েছে এমন। যাইতে পারবেন, আইতে পারবেন না। উঠতে পারবেন, নামতে পারবেন না। বাংলামোটরে নামার জায়গায় এক মাইল লম্বা লাইন।”

সড়ক দুর্ঘটনায় স্ত্রী জাহানারা কাঞ্চনের মৃত্যুর পর প্রায় একক প্রচেষ্টায় চলচ্চিত্র অভিনেতা ইলিয়াস কাঞ্চন সড়ক দুর্ঘটনা রোধে জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম নিয়ে রাস্তায় নামেন। ধীরে ধীরে তাঁর সঙ্গে যুক্ত হন বিভিন্ন শ্রেণি–পেশার মানুষ। এখন দেশের ভেতর এই সংগঠনটির শতাধিক ও দেশের বাইরে পাঁচটি শাখা রয়েছে। নিরাপদ সড়ক চাই–এর ২৫ বছর পূর্তিতে ইলিয়াস কাঞ্চন তাঁর সহযাত্রীদের ধন্যবাদ জানান। তিনি বলেন, দেশপ্রেম থাকলে নিরাপদ সড়ক নিশ্চিত করা সম্ভব। নইলে সম্ভব না।

Report by - //dailysurma.com

Facebook Comments

bottom